বাড়িতে একেবারে ছোট থেকেই রোজা রাখার নিয়ম ছিল অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া মাজহারের। ছোটবেলার রোজার দিনগুলো ছিল বেশ মজার, এমনই এক স্মৃতির কথা জানালেনগ্লিটজের পাঠকদের।


সেই ঘটনা আবারো মনে করতে গিয়ে প্রাণ খুলে হাসলেন ফারিয়া।
একটু পর গ্লিটজকে বললেন,“ছোটবেলার একটি ঘটনার কথা আমার আজও মনে পড়ে। তখন সম্ভবত আমি ক্লাস টুতে পড়তাম। তখন ইফতারের আগে আম্মুর সঙ্গে মিলেবাড়ির সবার জন্য বড় বড় পানির জগে শরবত তৈরি করতাম। কিন্তু বিপত্তি বাঁধত শরবত তৈরির পরে। শরবতে চিনি কম হল নাকি বেশি, তা চেখে দেখবে কে? সবাইতো রোজা!’
‘বড়দের সঙ্গে আমিও নিয়মিত রোজা রাখতাম। কিন্তু যখনই শরবত চেখে দেখার সময় হত, তখন কাউকে না পেয়ে শেষমেশ আমি নিজেই চুমুক দিতাম শরবতে। তারপর আম্মুকেবলতাম, ‘আম্মু চিনি ঠিক হয়েছে।’ তখনই আম্মু হেসে বলতেন, ‘তুই তো রোজা, তাইনা?’ আমি ফিক করে হেসে বলতাম, ‘উফফ সরি! আমি তো রোজা!’’
‘এভাবে প্রতিদিনই ইফতারের ১৫-২০ মিনিট আগে রোজা ভেঙ্গে ফেলা ছিল আমার প্রতিদিনের অভ্যাস। তবে সবচেয়ে মজার ব্যাপার হল, আমি প্রতিদিন একই ঘটনা ঘটিয়ে ঈদের দিন সবাইকে বলতাম ‘আমি তো তিরিশটা রোজা রেখেছি!’’
‘বড় হয়ে রোজা রাখি তখন সেদিনের কথা মনে পড়লেই আমার হাসি পায়। আমাদের বাড়ির নিয়ম অনুযায়ী ছোটবেলা থেকে সবাইকেই রোজা রাখতে হয়। এখনওনিয়মিত রোজা রাখি। তবে যখনই ইফতারের সময় শরবত পান করি, তখনই মনে পড়ে সেই ঘটনা।’ হাসতে হাসতে বললেন ফারিয়া।
লন্ডনে ‘বাদশা-দ্য ডন’এর শুটিং শেষে এখন সোজা বান্দরবান পাড়ি দিয়েছেন ফারিয়া, ‘প্রেম ও প্রেমি’র শুটিংয়ের জন্য। রোজার মাসে শুটিং পড়ায় এবারের প্রথম ইফতারটাকরেছেন শুটিং ইউনিটের সঙ্গেই। তবে জানালেন, পরিবারের সঙ্গে ইফতার করার মজাই অন্যরকম।
ফারিয়া বলেন, ‘শুটিংয়ের কাজে এখন বেশিরভাগ দিনগুলো ইফতার করেছি ইউনিটের সঙ্গে। কিন্তু পরিবারের সবাইকে নিয়ে ইফতারের মজাই আলাদা। যদিও সিনেমার ইউনিটও আরেকটি পরিবার কিন্তু তারপরেও পরিবারকে খুব বেশি মিস করতাম।’

টানা শুটিংয়ের অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে গেছেন ফারিয়া, রক্তচাপ কমে যাওয়ার পর এখন বাড়ি ফিরে আছেন সম্পূর্ণ বিশ্রামে। জানালেন, এই সুযোগে পরিবারের সঙ্গেইফতারটাও হচ্ছে।
‘বতর্মানে আমি অসুস্থ থাকার কারনে বাসায় বিশ্রামে রয়েছি। তাই এখন পরিবারের সবার সাথে ইফতার করতে পারছি। আবার যখন সিনেমার দৃশ্যধারনের কাজ শুরু হবে তখন আবারো পরিবারের সাথে ইফতার করাটাকে খুব বেশি মিস করবো।’ বলেন তিনি।
২০১৫ সালে যৌথ প্রযোজনায় র্নিমিত আব্দুল আজিজ ও অশোক পাতির ‘আশিকী’ সিনেমার মাধ্যমে ঢাকাই সিনেমায় নায়িকা হিসেবে শুরু হয় ফারিয়ার যাত্রা। এরপরেতাকে দেখা গেছে সৈকত নাসির পরিচালিত ‘হিরো ৪২০’এ।
আসছে ঈদে মুক্তি পাবে ফারিয়া অভিনীত ‘বাদশা-দ্য ডন’, টালিগঞ্জের পরিচালক বাবা যাদব নির্মিত এই সিনেমাতে ফারিয়া জুটি বেঁধেছেন কলকাতার নায়ক জিত গাঙ্গুলিরসঙ্গে।
বর্তমানে তিনি ব্যস্ত আছেন ‘প্রেম ও প্রেমি’র শুটিং নিয়ে, জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত এই সিনেমাতে ফারিয়ার বিপরীতে থাকবেন আরিফিন শুভ।