আপনার সন্তানের পেছনে যথেষ্ট সময় দেওয়ার পরেও পরীক্ষায় ভালো ফল করতে পারছে না? খেয়াল করে দেখুন সে ইন্টারনেট-টেলিভিশন ইত্যাদিতে অতিরিক্ত আসক্ত হয়ে পড়েছে কী না।  এটা এখন প্রমাণিত যে যেসব শিক্ষার্থী ইন্টারনেট বা টেলিভিশন স্ক্রীনে অতিরিক্ত সময় ব্যয় করে তাদের পরীক্ষার ফলাফল তুলনামূলক খারাপ হয়।
ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় ৮০০ কিশোর শিক্ষার্থীর উপর গবেষণা করে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। গবেষণায় দিনে চার ঘন্টা ইন্টারনেট-টিভি ব্যবহার স্বাভাবিক বলে ধরে নেওয়া হয়। এর থেকে যারা বেশি সময় ব্যয় করে তাদের সময়ানুক্রমে পরীক্ষার ফলাফল নিম্নগামী হয়। গবেষণায় দেখানো হয় যে ১৪ বছর বয়সে যে কিশোর অতিরিক্ত সময় ইন্টারনেট বা টিভি দেখে ব্যয় করে তাদের পরীক্ষার ফলাফলে দুই বছরের মধ্যে কমপক্ষে দুই গ্রেড অবনমন হবে। অর্থাৎ সদ্য ক্লাস নাইনে ওঠা কোনো শিক্ষার্থীর হয়তো যোগ্যতা রয়েছে এ গ্রেড পাওয়ার। কিন্তু শুধুমাত্র অতিরিক্ত টিভি বা ইন্টারনেট ব্যবহারের কারণে তার গ্রেড বি তে নেমে আসবে। 
ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ক্রিস্টেন কোর্ডার বলেন, এই গবেষণার পরে আমরা যৌক্তিক ভাবেই এই পরামর্শ দিতে পারি যে টিভি বা ইন্টারনেটে অতিরিক্ত সময় কাটানোর জন্য কিশোরদের গ্রেডে অবনতি হচ্ছে।  এই গবেষণায় এটাও দেখানো হয়েছে যে কিশোররা দৈনিক অতিরিক্ত এক ঘন্টা হোমওয়ার্ক ও পড়াশোনায় ব্যয় করে তাহলে তার গড় নাম্বার অন্যদের থেকে ২৩ পয়েন্ট বৃদ্ধি পায় যেখানে এক ঘন্টা অতিরিক্ত ইন্টারনেট ব্যবহার ১৮ পয়েন্ট কমিয়ে দেয়!