শীতে রূপের যত্নে সরিষার তেল

সরিষার তেলের স্বাস্থ্যগুণের কথা সকলেই জানেন। রান্নায় সরিষার তেল ব্যবহারের উপকারিতা নিয়ে আর নতুন করে বলার কিছু নেই। আর এই সব গুণ শুধু পুষ্টির জন্যই নয়, রূপচর্চার জন্যও দারুণ উপকারী। বিশেষ করে শীত কালে। জেনে নিন সরিষার তেল কীভাবে ব্যবহার করতে পারেন রূপচর্চার কাজে।

ম্যাসাজ: 
 
ভারতীয়রা বহু কাল ধরেই গোসলের আগে গায়ে সরিষার তেল মালিশ করে স্নান করে থাকেন। শীত কালে স্নানের আগে ত্বকের অতিরিক্ত শুষ্ক অংশ যেমন কনুই, গোড়ালি বা যেখানে ত্বকে টান ধরছে, সর্ষের তেল মালিশ করে নিন।
ট্যান: 
 
ত্বকের রোদে পোড়া ভাব কাটাতে সর্ষের তেলের সাথে বেসন, লেবুর রস, দই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাক লাগালে ট্যান উঠে যাবে।
 
ঠোঁট: 
 
ফাটা ঠোঁট দেখতে সবচেয়ে খারাপ লাগে। দোকান থেকে কেনা লিপ বামের বদলে রোজ কয়েক ফোঁটা সরিষার তেল লাগিয়ে নিলে বেশি উপকার পাবেন। রাতে ঘুমনোর সময় নাভিতে সরিষার তেল দিয়ে ঘুমালে ফাটা ঠোঁটের সমস্যা হবে না।
 
চুল: 
 
সরিষার তেল গরম করে মাথায় মালিশ করুন। হালকা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে খুস্কি, স্ক্যাল্প শুষ্ক হয়ে যাওয়ার মতো শীতের সমস্যা দূর হয়, তেমনই চুল দেখতেও উজ্জ্বল লাগে।
 
দাঁত: 
রোজ সকালে ব্রাশ করার পর সরিষার তেলের সাথে সামান্য নুন ও লেবুর রস মিশিয়ে দাঁতে লাগিয়ে রাখুন ৫ মিনিট। পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। রোজ করলে দাঁতের হলুদ ছোপ উঠে গিয়ে ঝকঝকে হবে হাসি।
 
নির্জীব: 


শীত কালে ত্বক আর্দ্রতা হারিয়ে নির্জীব লাগে দেখতে। এ দিকে বিয়ের অনুষ্ঠান, পার্টি লেগেই থাকে। শুষ্ক ত্বকে মেক আপ করলে দেখতে ভাল লাগে না। মেক আপ করার আগে কয়েক ফোঁটা সরিষার তেল মেখে নিন মুখে। কিছু ক্ষণ রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তারপর ফাউন্ডেশন লাগান।